ভন্ড শাকিবের প্রথম স্ত্রী রাত্রির চাঞ্চল্যকর তথ্য

বিনোদন ডেস্ক
ঢাকা: মাসুদ রানা থেকে শাকিব হওয়ার যাত্রাটা এতটাও মসৃণ ছিলো না তার জন্য। অনেক বন্ধুর পথ পেড়িয়ে তিনি আজ দুই বাংলার সুপারস্টার। পেছনে অনেক গভীর অতীত অবহেলায় ফেলে এসেছেন আজকের শাকিব খান। তারকা খ্যাতির শীর্ষ উঠার যাত্রায় একের পর এক পিছুটান তিনি কেটেছেন।

অদৃশ্য রক্তপাতহীন এই কর্তনের বলি অপুই প্রথম নন। এর আগে শাকিবের জীবন থেকে বিতাড়িত হয়েছেন রাত্রী নামের এফডিসির এক চতুর্থশ্রেণীর আর্টিস্ট। তাকে বিয়েও করেছিলেন শাকিব খান এবং সেই ঘরে একজন সন্তানও আছে। নাম রাহুল খান। চলতি বছরের এপ্রিলে শাকিব-অপুর বিয়ের কথা প্রকাশ্যে এলে, তার প্রথম স্ত্রী হিসেবে রাত্রির নাম আসলেও অতীতের মত আবার গোপনে চলে যায় নামটি।

এফডিসি সংশ্লিষ্ট অনেকেই শাকিব-রাত্রির ব্যাপারটা জানেন। প্রোডাকশন বয় থেকে শুরু করে অনেক সাংবাদিকের কাছেও এটা ওপেন সিক্রেট। নিকট অতীত না হওয়ার কারনেই হয়তো কেউ আর এটার চর্চা করেন না। কারো সঙ্গে আলাপ করতে গেলেই কেউ রহস্যজনক হাসি হাসেন অথবা হেসেই উড়িয়ে দেন।

ক্যারিয়ায়ের সূচনা কালে শাকিব নিজেও যখন নিচু সারির আর্টিস্ট তখন তার কাছের বন্ধু ছিলেন রাত্রি। একসময় শাকিবকে নাচ, গান, এমনকি তাকে তার বাসায় থাকার জায়গা পর্যন্ত করে দিয়েছিলেন রাত্রি।

সৌন্দর্য্য আর নাচের পারদর্শীতার কারনে রাত্রির একটা গ্রহণযোগ্যতাও তৈরি হয়েছিল। এমন কি শাকিব খানকে নিয়ে অনেকের কাছে পরিচয় করে দিতেন তিনি। রাত্রির ভাষ্যমতে, হিরা-চুনি-পান্না সিনেমার জন্য শাকিবকে কিনে দিয়েছিল হাজার টাকা দামের একটি দামি কোর্ট।

শাকিব এখন বড় সুপারস্টার হয়ে গেছে বলেই এখন হয়তো রাত্রিকে তার নজরে পড়ে না। কিন্তু আজও শাকিবের কোন শুটিং এফডিসিতে থাকলে রাত্রি ঠিক থাকতে পারেন না। শাকিবকে দেখার জন্য আজও খাওয়া দাওয়া ভুলে এফডিসির চারপাশ পাগলের মত ঘুরতে থাকেন। কিন্তু সে খবর কে রাখে!

রাত্রির ভাষ্যমতে শাকিবই ছিল তার প্রথম জীবনে চলার পথে একমাত্র সঙ্গী। একসময় সেটা প্রেমে রূপ নেয়, সেই সঙ্গে শারীরীক সম্পর্কেও জড়িয়ে পড়েন তারা। সব ঠিকঠাক চলছিল। এর মধ্যেই গর্ভবতী হয়ে পড়েন রাত্রি।

বিষয়টি শাকিবের কান পর্যন্ত গড়ালো, তখন তাদের মধ্যকার সম্পর্কের ভিতটাই নড়ে ওঠলো। শাকিব তখন চলচ্চিত্রের শীর্ষ তারা হওয়ার স্বপ্নে বিভোর। এখনই পারিবারিক সম্পর্ক বা স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে ক্যারিয়ারের সম্ভাবনাকে নস্যাৎ করতে চান না। এর মধ্যেই রাত্রির বাচ্চা নষ্ট করার জন্য লাখ টাকা খরচও করতে চেয়েছিলেন শাকিব। কিন্তু মায়ের মমতার কাছে হার মানেনি রাত্রি।

সেই ঘরেই জন্মেছে বেশ লাজুক প্রকৃতির ছেলে রাহুল খান। বাংলামোটর একটি ওয়ার্কশপে মাত্র তিন হাজার টাকার বেতনে চাকুরী করে। পরিবারের প্রসঙ্গ আসলেই চুপসে যায়। বিশেষ করে বাবার প্রসঙ্গ আসলেতো একেবারেই চমকে যায়।

যদিও জানা গেছে রাত্রির সন্তান পৃথিবীতে আসার পর শাকিব তাদের সংসার খরচ হিসেবে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করে আসছেন। মূলত সে কারনেই এই বিষয়টি কখনো মিডিয়ার সামনে ওভাবে আসেনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।