মনীষা কৈরালার সঙ্গে ঘণ্টা খানেক আড্ডা তিশার

বিনোদন ডেস্ক
ঢাকা: ঢাকার জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বিচারক হিসেবে ১৮ নভেম্বর নেপালের কাঠমান্ডুর একাদেশমা আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেন। সঙ্গে ছিলেন তার স্ত্রী অভিনয়শিল্পী তিশা। উৎসব শেষে তিশা দুইদিন আগে ঢাকায় ফিরেছেন।

উৎসবে গিয়ে বলিউড তারকা মনীষা কৈরালার সঙ্গে দেখা হয় তার। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিশা বলেন, নেপালি বংশোদ্ভূত বলিউডের জনপ্রিয় একজন অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা। ১৯ নভেম্বর তার সঙ্গে আমার দেখা হয়।

ঘণ্টা খানেক আমরা আড্ডা দিয়েছি। এ সময় উৎসব নিয়েই আমাদের বেশি কথা হয়েছে। তিনি আমার নতুন কাজের খবর জানতে চেয়েছেন। বেশ ভালো সময় কেটেছে আমাদের, এইতো।

এদিকে আসছে ১ ডিসেম্বর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ও তিশা অভিনীত নতুন ছবি ‘হালদা’। এ ছবিতে তিশার পাশাপাশি অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, জাহিদ হাসান, মোশাররফ করিমসহ অনেকে।

ছবিটি নিয়ে তিশা বলেন, এর আগে তৌকীর ভাইয়ের সঙ্গে নাটকে কাজ হয়েছিল। তবে নির্মাতা হিসেবে তৌকীর ভাইয়ের ছবিতে বেশ আগে থেকেই কাজ করার ইচ্ছে ছিল। অবশেষে ‘হালদা’ ছবির মাধ্যমে সেই ইচ্ছে পূরণ হয়েছে। এ ছবিতে আমার চরিত্রের নাম হাসু।

গল্পটি চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী নদী হালদাকে নিয়ে। আর হালদা নদীকে ঘিরেই আমার চরিত্র। ছবির গল্প শোনার পর বলে দিয়েছিলাম কাজটি আমি করছি।

কারণ, শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত গল্পটি আমার খুব ভালো লেগেছে। শুটিংয়ের সময়ে তো অনেক ধরনের প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে হয়। এমন কিছু ঘটেছে কি? এর জবাবে তিশা বলেন, হুম, সেরকম অনেক ঘটনা আছে।

যেমন অনেক ভোরে উঠে আমরা শুটিং শুরু করে দিতাম। কারণ যে এলাকায় শুটিং করেছি সেখানকার চারপাশের এত মানুষ এসে জড়ো হয়ে যেত যে শুটিং শেষ করা দু:সাধ্য হয়ে পড়েছিল আমাদের। তাই সঠিক সময়ে শুটিং শেষ করার জন্য আমরা বেশ ভোরে উঠে কাজ শুরু করতাম।

এ কাজটি সবার জন্যই বেশ কষ্টসাধ্য ছিল। তবে আমরা যে লোকেশনে শুটিং করেছি সেটি ছিল দারুণ সুন্দর।

তিশা ছবিটি নিয়ে আরো বলেন, এই ছবিতে মোশাররফ ভাই, জাহিদ ভাই, নির্মাতা তৌকীর ভাইসহ বলতে গেলে পুরো টিমই ছিল একটি পরিবারের মতো। আনন্দঘন পরিবেশেই আমরা কাজ করেছি।

কাজটি করতে গিয়ে বেশ উপভোগ করেছি আমি। কিছুদিন আগে ফেসবুকে ‘হালদা’ ছবির পোস্টার প্রকাশ করেন তৌকীর আহমেদ। এই পোস্টারের নকশা করেন তার সহধর্মিণী অভিনেত্রী ও চিত্রশিল্পী বিপাশা হায়াত। আজাদ বুলবুলের গল্প থেকে ‘হালদা’ ছবির চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন তৌকীর আহমেদ।

সবশেষ মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ডুব’ ছবিটি মুক্তি পায় তিশার। এ ছবিতে বলিউড অভিনেতা ইরফান খানের বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি। দর্শকরা তার অভিনয় দেখে বেশ প্রশংসা করেন। অনেকদিন ধরেই কোনো টিভি ধারাবাহিক নাটকে কাজ করছেন না তিশা।

বিশেষ দিবসের খন্ড নাটকেই শুধু তাকে দেখা যায়। তাই বর্তমান নতুন কাজের ব্যস্ততা নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সামনে বিশেষ দিবসের জন্য এক ঘন্টার খন্ড নাটকের বিষয়ে কথা চলছে। চুড়ান্ত হলে সেই কাজগুলোতে হাত দিব ডিসেম্বরে। আর নতুন বছরের শুরুতে একটি ছবির কাজ করব।

নতুন এ ছবির নাম ‘সাটার ডে আফটারনুন’ যার বাংলায় ট্যাগলাইন ‘শনিবারের বিকেল’। তবে এ নিয়ে এখনই বলার সময় আসেনি। সামনে বেশকিছু শিল্পীও নির্বাচন করা হবে। আর সবকিছু ঠিক হলে তারপরই জানাব।

প্রসঙ্গত, ‘শনিবারের বিকেল’ ছবির সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে থাকবেন মাত্র ছাব্বিশ বছর বয়সে বার্লিনে সিলভার বিয়ার বিজয়ী আজিজ জাম্বাকিয়েভ। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় এ ছবির অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে বাংলাদেশের নুসরাত ইমরোজ তিশার সঙ্গে থাকবেন ফিলিস্তিনি অভিনেতা ইয়াদ হুরানি। শিগগিরই জানা যাবে এ ছবির অন্য কলাকুশলীর নাম।

নুসরাত ইমরোজ তিশা টিভি নাটকের মাধ্যমে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। তবে গান দিয়েই শুরু হয়েছিল তিশার পথচলা। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তিনি সকল শ্রেণীর দর্শকদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেন।

তিশা ২০ ফেব্রুয়ারী রাজশাহীতে জন্মগ্রহন করেন। জন্ম রাজশাহীতে হলেও তিনি বেড়ে উঠেছেন ঢাকায়। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি টিভি ও চলচ্চিত্র পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সাথে ২০১০ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

১৯৯৫ সালে নতুন কুঁড়ি প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছিলেন তিনি। গান করতে করতেই ১৯৯৭ সালে অনন্ত হীরার লেখা আর আহসান হাবীবের প্রযোজনায় ‘সাতপেড়ে কাব্য’ নামে একটি নাটকে শিশুশিল্পী হিসেবে শখের বশে অভিনয় করেন। তিশা, রুমানা, নাফিজা ও কণা এই চারজন গঠন করেন ব্যান্ডদল ‘অ্যাঞ্জেল ফোর’। যদিও সে ব্যান্ড দলটি বেশিদূর এগোতে পারেনি। ২০০৩ সাল থেকে নাটকে অভিনয়ের ব্যস্ততা আর অন্য সদস্যরা যে যার কাজে ব্যস্ত থাকায় দলটি ভেঙে যায়।

মেরিল লিপজেলের বিজ্ঞাপনে অভিনয়ের মাধ্যমে মডেল হিসেবে যাত্রা শুরু করেন তিশা। এরপর একে একে কোকাকোলা, সিটিসেল আর কেয়া সাবানের বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেন তিনি। ২০০৩ সালে মডেলিংয়ের পাশাপাশি অভিনয়ের প্রতি তার ভালোবাসা তৈরি হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।