হঠাৎ রেগে গেলেন ঐশ্বরিয়া!

বিনোদন ডেস্ক
ঢাকা: গত ১৬ নভেম্বর ছিল অভিষেক বচ্চন ও ঐশ্বরিয়া রাই কন্যা আরাধ্য রাই বচ্চনের জন্মদিন। চলতি বছরের মার্চে ঐশ্বরিয়ার বাবা কৃষ্ণরাজ রাইয়ের মৃত্যুতে নিজের জন্মদিন তো বটেই মেয়ের জন্মদিনও অত ধুমধামভাবে পালন করেননি তিনি।

বরং জন্মদিনকে অন্যভাবে পালন করতে অসুস্থ শিশুদের মাঝে ছুটে গিয়েছিলেন ঐশ্বরিয়া। সেখানেই বাবাকে মনে করে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। আর সে সুযোগ হাতছাড়া করেননি পাপারাজ্জিরা। পাপারাজ্জিদের একের পর এক ছবি তুলতে দেখে মেজাজ আর ঠিক রাখতে পারেননি ঐশ্বরিয়া।

মেয়ের জন্মদিন উদযাপন করতে স্মাইল ফাউন্ডেশন পরিদর্শন করেন ঐশ্বরিয়া। সেখানে জন্মগতভাবে ঠোঁট ও তালু কাটা শিশুদের সঙ্গে সময় কাটান তিনি। একই রকম সমস্যা নিয়ে জন্মেছিলেন ঐশ্বরিয়ার বাবাও।

বাবার স্মরণে কেক কাটেন ঐশ্বরিয়া। হঠাৎ করেই আবেগে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। তখনই পাপারাজ্জিরা একের পর এক ছবি তুলতে থাকে ঐশ্বরিয়ার। আর রেগে যান তিনি।

পাপারাজ্জিদের উদ্দেশে ঐশ্বরিয়া বলেন, ‘দয়া করে বন্ধ করুন। আপনারা কাজ কাকে বলে জানেন না। এটা ছবির কোনো প্রিমিয়ার নয়। এটা কোনো অনুষ্ঠানও নয়। দয়া করে আপনারা একটু সম্মান দিন। আপনাদের সবার সমস্যা কী?’

বর্তমানে ‘ফেনি খান’ ছবির শুটিংয়ে ব্যস্ত রয়েছেন ঐশ্বরিয়া। ছবিটিতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন রাজকুমার রাও ও অনিল কাপুর।

যে কারণে সালমান-ঐশ্বরিয়ার প্রেম বিয়েতে গড়ায়নি
সালমান খান এবং ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। সহ অভিনেতা ছাড়াও তাদের সম্পর্ক ছিল আরো একটু বেশি। না! শুধুই বন্ধুত্ব নয়। তাদের যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল এ বোধহয় বলিউড পাড়ার কারো অজানা নয়। কিন্তু সে প্রেম টেকেনি। তার নেপথ্যে অনেকে থাকতে পারেন। তবে সে সময় সালমান অভিযোগের আঙুল তুলেছিলেন ঐশ্বরিয়ার বাবা কৃষ্ণরাজ রাইয়ের দিকে।

ঐশ্বরিয়ার নাম না নিয়ে সালমান বলেছিলেন, ‘ওর বাবা কৃষ্ণরাজ রাই আমায় পছন্দ করতেন না। আমার আগের সম্পর্কগুলোর কারণে ওর বাবা আমায় মেনে নিতে পারেননি। ওর পরিবারের সঙ্গেও আমার ঝামেলা বেধেছিল ওর বাবার জন্যই।’

সে কারণেই সম্প্রতি কৃষ্ণরাজ মারা যাওয়ার পর বলিউড ভাইজান প্রকাশ্যে কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি বলে মনে করছেন বলিউডের একটা বড় অংশ। কৃষ্ণরাজের স্মরণসভায় বলিউড পাড়ার প্রথম সারির তারকারা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু সালমান খানকে সেই সভায় দেখা যায়নি। এ বিষয়ে মুখও খোলেননি।

যদিও সে সময় ঐশ্বরিয়া বলেছিলেন, ‘আমি মদ্যপ সালমান, বেহিসেবি সালমানের পাশে থেকেছি। কিন্তু ও কেবল আমায় অত্যাচার করেছে। আমি সম্মান নিয়ে বেরিয়ে এসেছি।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।