ইতিহাস সৃষ্টির পথে শেখ হাসিনা, ফের মসনদে বঙ্গবন্ধুর কন্যা

নিউজ ডেস্ক
ঢাকা: ইতিহাস সৃষ্টির পথে শেখ হাসিনা। চতুর্থ বারের জন্য প্রধা্নমন্ত্রীর মসনদে বসতে চলেছেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা। প্রায় একশো শতাংশ আসন নিয়ে বাংলাদেশে ক্ষমতায় আসতে চলেছে আওয়ামি লিগ পার্টি। ভোট গণনা এখনও চলছে, তবে গণনার ফল ইঙ্গিত দিচ্ছে, বিএনপি-কে পিছনে ফেলে ইতিহাস সৃষ্টি করতে চলেছে আওয়ামি লিগ পার্টি। কারণ, যতগুলো আসনে ভোট গণনা চলছে বা শেষ হয়ে গিয়েছে গণনা, সেগুলোর মাত্র তিন-চারটি আসন ছাড়া বাকি সবগুলোতেই হয় বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছেন, নয় জয়ী হয়েছেন আওয়ামি লিগ পার্টি প্রার্থীরা। গোপালগঞ্জ-৩ আসন থেকে ২ লা্খ ৩২ হাজার ভোট পেয়ে রেকর্ড গড়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা হাসিনা। সেখানে বিএনপি প্রার্থী এস এম জিলানী পেয়েছেন মাত্র ১২৩টি ভোট।

কুড়িগ্রাম-১, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩, বরিশাল-৩ এই তিনটি আসনে এখনও পর্যন্ত এগিয়ে রয়েছেন বিএনপি প্রার্থীরা। শুধুমাত্র বগুড়া-৪ আসনে বিএনপি প্রার্থী মোশারফ হোসেন জয়ী হয়েছেন। আওয়ামি লিগ এবং বিএনপি প্রার্থীর মধ্যে খুব রেষারেষি চলছে মৌলভীবাজার-২ আসনে। কিন্তু এখনও কোনও আসনেই বিএনপি প্রার্থীর জয়ীর খবর আসনি। অপরদিকে, দিনাজপুর-৩, কুষ্টিয়া-১ এবং ৪, যশোর-১ এবং ৬, পটুয়াখালী-২ ও ৩, টাঙ্গাইল-৩, জামালপুর-৪, নেত্রকোনা-৩ এবং ৪, গোপালগঞ্জ-২ এবং ৩, মাদারীপুর-২, সিলেট১ এবং ৬, নোয়াখালী-৪ — এই আসনগুলোতে ইতিমধ্যেই বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন আওয়ামি লিগ প্রার্থীরা। নীলফামারি-৩-এ মহাজোট প্রার্থী জাতীয় পার্টির রানা মহম্মদ সোহেল জয়ী হয়েছেন।

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিকেল ৪টে নাগাদ শুরু হয় গণনাও। বাংলাদেশের সংসদে মোট আসন ৩০০। সরাসরি সাধারণ ভোটারদের ভোটে নির্বাচিত হন এই আসনগুলির প্রার্থীরা। এর বাইরেও আরও ৫০টি আসন মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। সাধারণ ভোটে রাজনৈতিক দলগুলির প্রাপ্ত ভোটের ভিত্তিতে এই ৫০টি আসনের প্রার্থীরা নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালের সাধারণ নির্বাচনে ৩০০টির মধ্যে ২৩৪টি আসন জিতে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসে আওয়ামি লিগ।

বাংলাদেশে ভোট গণনা হয় ভোটগ্রহণের বুথেই। অর্থাৎ ভোটগ্রহণ পর্ব মেটার পর সেখানেই গণনা শুরু হয়। শেষ হওয়ার পর গণনার তথ্য পাঠিয়ে দেওয়া হয় সংশ্লিষ্ট আসনের সেন্ট্রাল কন্ট্রোল রুমে। সেখান থেকেই প্রতিটি আসনের আলাদা ফল ঘোষণা করা হয়। এ বারই প্রথম বাংলাদেশের ছ’টি আসনের বুথগুলিতে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

বাংলাদেশের নির্বাচনী পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন আজ রবিবার রাতের মধ্যেই ভোটের ফলাফলের চিত্র মোটামুটি পরিষ্কার হয়ে যাবে। ইতিমধ্যেই গণনার ট্রেন্ড আসতে শুরু করেছে। তবে কোথাও পুনর্গণনা হলে, সেখানকার চূড়ান্ত ফল বের হতে দেরি হতে পারে বলেও মনে করছেন পর্যবেক্ষকদের একাংশ।