নির্বাচন বাতিল ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে বামদের অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক
ঢাকা: নির্বাচনে কোটি কোটি ভোটারের ভোটাধিকার হরণ করেছে বলে বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে অবিলম্বে নির্বাচন বাতিল ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মুখে কালো কাপড় বেঁধে অবস্থান নিয়ে তারা এ দাবি জানান।

‌সি‌পি‌বির কেন্দ্রীয় ক‌মি‌টির সম্পাদক ও বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘নির্বাচনের দিনের আগের রাতে ব্যালটবাক্সে ভর্তি করে রাখা, নিরাপত্তার নামে নজিরবিহীন ভয়-ভীতি ও আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠান কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা এবং ন্যাক্কারজনক ভূমিকা পালন করেছে। বাম জোটের একাধিক প্রার্থীসহ বিরোধী দলগুলোর প্রার্থীর এজেন্টদের আটক, শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত, কেন্দ্র থেকে জোর করে বের করে দেয়ার মধ্য দিয়ে অধিকাংশ দেশবাসীকে ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।’

প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ভেঙে দিয়ে গোটা নির্বাচনকে ব্যর্থ করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আশঙ্কানুযায়ী নির্বাচনে সরকারেরই ছ‌কের বাস্তবায়ন করা হয়েছে। দেশব্যাপী ভোট কেন্দ্র দখল, প্রকাশ্য জালিয়াতি, ব্যালট পেপারে প্রকাশ নৌকা মার্কায় সিল মারতে বাধ্য করা হয়েছে, বিরোধীদলীয় ভোটারদের জোর করে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে, কোথাও সকাল ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যাওয়ার প্রভৃতি অসংখ্য ঘটনার মধ্য দিয়ে সমগ্র নির্বাচনকে পুরোপুরি অর্থহীন হাস্যকর করে তুলেছে সরকার।’

এই সমূদয় তৎপরতার মধ্য দিয়ে দেশব্যাপী ভোটারদের মধ্যে ভোট নিয়ে যেটুকু আগ্রহ তৈরি হয়েছিল তা পুরোপুরি নষ্ট করে দেয়া হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘দলীয় সরকারের অধীনে বাংলাদেশে ন্যূনতম গণতান্ত্রিক পরিবেশে অবাধ নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের যে কোনো অবকাশ নেই তা আরেকবার প্রমাণ হলো।তাই এই নির্বাচন ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না। এই নির্বাচনে জনগণের মতামতের কোনো প্রতিফলন ঘটেনি।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘৩০ ডিসেম্বর অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে দেশবাসীকে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচনের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। ভুয়া ভোটে যাদেরকে নির্বাচিত বলে ঘোষণা করা হয়েছে তাদের সবাইকে জনগণ ভুয়া প্রতিনিধি হিসাবে বিবেচনা করছে। জনগণের কাছে জনগণের প্রতিনিধি বলে দাবি করার কোনো বৈধতা নেই তাদের।’

এ অবস্থায় সংঘটিত প্রহসনের নির্বাচনের ফলাফল বাতিল করে অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নিরপেক্ষ সরকার গঠন ক‌রে গোটা নির্বাচন ব্যবস্থার আমূল সংস্কার সাধন করে নতুন নির্বাচন করার দাবি জানান।

এ সময় তিনি আজকের চলমান সারা দেশের অবস্থান কর্মসূচিতে নেতাকর্মীদের ওপর হামলা ও দুজন প্রার্থীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

আগামী ১১ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের মিলনায়াতনে বাম গণতান্ত্রিক জে‌াটের উদ্যোগে তা‌দের প্রার্থীদের নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি জানান।

অবস্থান কর্মসূচিতে সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামানসহ প্রায় দেড় শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।