মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে যে কথা হয় বিএনপির প্রতিনিধিদলের

নিজস্ব প্রতিনিধি: মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে নির্বাচন-পরবর্তী পরিস্থিতি ও চলমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে বৈঠক করেছে বিএনপির প্রতিনিধিদল।

শুক্রবার সকাল ১০টায় মার্কিন রাষ্ট্রদূতের গুলশানের বাসভবনে শুরু হয়ে দেড় ঘণ্টাব্যাপী ওই বৈঠক চলে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আওয়াল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে বেরিয়ে কেউ সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে নির্বাচন-পরবর্তী পরিস্থিতি ও একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটে নানা অনিয়মের চিত্র তুলে ধরা হয় বলে বৈঠক সূত্রে জানা যায়। এ ছাড়া চলমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়েও উভয়পক্ষের মধ্যে আলাপ-আলোচনা হয়।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৯৮টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ২৫৭টি, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি ২২টি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল—বিএনপি পাঁচটি, ওয়ার্কার্স পার্টি তিনটি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল দুটি, বিকল্পধারা বাংলাদেশ দুটি, গণফোরাম দুটি, জাতীয় পার্টি—জেপি একটি এবং তরীকত ফেডারেশন একটি আসনে বিজয়ী হয়েছে। এ ছাড়া নির্বাচনে তিনজন স্বতন্ত্র সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হয়েছে। আওয়ামী লীগ, তাদের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট ও মহাজোটের সংসদ সদস্যরা প্রায় সবাই শপথ নিয়েছেন। আর এর মধ্য দিয়ে সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। আগামী সোমবার মন্ত্রিসভা শপথ নেবে।

কিন্তু শপথ নেননি ঐক্যফ্রন্টের সাত সংসদ সদস্য। সংসদ ভবনে যখন শপথ গ্রহণ চলছিল, তখন বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের ধানের প্রার্থীরা গুলশানের বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বৈঠক করেন। পরে ঐক্যফ্রন্টের ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে (ইসি) গিয়ে স্মারকলিপি দেয়। সেখানে তাঁরা এই নির্বাচন বাতিল করে নতুন নির্বাচনের দাবি জানান।