‘আমাদের উদ্যোগে বিশ্বের ৯৭টি দেশের ৪০০০ মানুষ ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
কুয়েত সিটি: আল-নাজাত চ্যারিটি সোসাইটির ইলেক্ট্রনিক দাওয়াহ কমিটির পরিচালক আব্দুল্লাহ আল-দোসারী ঘোষণা করেছেন যে, বিশ্বব্যাপী পরিচালিত ‘Dialogue of faith project’ এর আওতায় বিশ্বের ৯৭ টি দেশের ৪০০০ মানুষ ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন ।

দোসারী বলেন, এটি এমন এক প্রকল্প, এর কমিটি ইসলামকে সংজ্ঞায়িত করে অমুসলিমদের কাছে তুলে ধরে। বর্তমানে এই প্রকল্পের আওতায় রয়েছে একটি ওয়েবসাইট, যেটি পাঁচটি ভাষায় কাজ করছে (ইংরেজি, তাগালগ, স্প্যানিশ, সোয়াহিলি এবং জাপানি)।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, কমিটির সাথে সম্পর্কটি সার্টিফিকেট ইস্যুটিতে শেষ করে না, বরং মানুষের হৃদয়ে বিশ্বাসের স্তম্ভগুলি শক্তিশালী করার আহ্বান করে। এবং আইনশাস্ত্রের অগ্রাধিকার অনুসারে অমুসলিম সমাজকে ইসলামের প্রয়োজনীয়তাগুলি শিক্ষা দেয়।

প্রকল্প পরিচালক আরো বলেন, এই প্রকল্পের লক্ষ্যবস্তু ভাষা এবং দেশের উপর নির্ভর করে আমাদের সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে স্বতন্ত্র অ্যাকাউন্ট রয়েছে এবং এটি অমুসলিমদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ রক্ষা করে।

এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য সম্পর্কে তিনি এও বলেন, আমাদের মূল উদ্দেশ্য অমুসলিমদের কাছে সঠিকভাবে ইসলামকে তুলে ধরা এবং যারা ইসলামের ছায়াতলে আসতে চান তাদেরকে নির্দেশিকা প্রদান করা।

সবশেষে আল-দোসরী বলেন, এই প্রকল্পটিকে সমর্থন করার জন্য বিশ্বের সুপ্রতিষ্ঠিত মানুষদের আহ্বান জানাচ্ছে যাতে কমিটি কোরিয়া ও জাপানের মতো দেশগুলিতে পৌঁছাতে পারে। তিনি বলেন, ১৮০০০৮২ এবং ৯৭২৮৮০৪৪ টেলিফোন নম্বরে বিশ্বের যে কেউ কমিটির সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

সূত্র: আরবটাইমস অনলাইন

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল আদর্শ-ইসলাম
ইসলাম হচ্ছে বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল একটি ধর্ম বা আদর্শ। কেন এমনটি হচ্ছে? ইসলাম এবং খ্রিস্টানিটির মধ্যকার মূল পার্থক্য গুলোইবা কি? কেন এ বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ? এসব প্রশ্নের উত্তরসহ আধুনিক খ্রিস্টানদের মনে উদয় হওয়া এরকম হাজারো প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য একটি বই লিখা হয়েছে। আর এই বইটির নাম হচ্ছে- ‘THE CRUCIFIX ON MECCA’S FRONT PORCH’।

যুক্তরাষ্ট্রের সান্তা ক্লারা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি, ইসলামিক এবং মধ্যপ্রাচ্য সম্পর্কিত বিভাগের পরিচালক ড. ডেভিড পিনাউল্ট ‘THE CRUCIFIX ON MECCA’S FRONT PORCH’ নামের বইটির লেখক। তিনি বইটিতে ইসলাম এবং খ্রিস্টান ধর্মের মধ্যকার মূল পার্থক্য গুলো তুলে ধরতে সচেষ্ট হয়েছেন।

ড. ডেভিড পিনাউল্ট জোর দিয়ে বলেন, তার নতুন বইতে ইসলাম এবং খ্রিস্টান ধর্মের মধ্যকার যে পার্থক্য গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে তা পাঠের মাধ্যমে একজন পাঠক ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে শুধুমাত্র একটি গভীর ধারণাই লাভ করবে না বরং একজন খ্রিস্টান তার ধর্ম বিশ্বাস সম্পর্কে নতুনভাবে বুঝতে শিখবে।

ড. ডেভিড পিনাউল্ট বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশে কর্মরত ছিলেন। এর মধ্যে তিনি পাকিস্তান, ইয়েমেন, মিশর এবং ইন্দোনেশিয়ায় সফর করেছেন এবং সেখানকার নিগৃহীত খ্রিস্টানদের জন্য কাজ করেছিলেন। তিনি তার ‘THE CRUCIFIX ON MECCA’S FRONT PORCH’ নামক বইতে এসব মুসলিম দেশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেছেন।

ড. ডেভিড পিনাউল্ট তার বইতে বিভিন্ন ইসলামিক সংস্কৃতিগুলো তুলে ধরেছেন এবং যিশু সম্পর্কে ইসলাম ধর্মের শিক্ষা নিয়ে আলোচনা করেছেন। একই সাথে বিশ্বের মিলিয়নেরও অধিক মানুষ কেন ইসলাম ধর্মের প্রতি দুর্বলতা অনুভব করেন তা তুলে ধরেছেন। তার এই বইটি এমন সময় প্রকাশিত হয়েছে যখন ইসলাম এবং খ্রিস্টান ধর্মকে মানুষের সামনে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা শুরু হয়েছে।

‘Closing of the Muslim Mind’ নামক বই এর লেখক রবার্ট রেইলি বলেন- ‘ড. ডেভিড পিনাউল্ট তর্কের ঊর্ধ্বে থেকে ইসলাম এবং খ্রিস্টান ধর্মের মূল পার্থক্যগুলো তুলে ধরেছেন। বিশেষত যিশু কে ছিলেন এবং তার পরিচয় কি, সে সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিয়েছেন। এই বইটি একদম সাধারণ পাঠক থেকে বিশেষজ্ঞ যে কোনো পাঠকের জন্য অপরিহার্য।’

সূত্রঃ ইসলাম সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ ড. ডেভিড পিনাউল্ট একজন ক্যাথলিক খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী। তিনি প্রধানত ইসলাম এবং খ্রিস্টান ধর্মের মধ্যকার মূল পার্থক্যগুলো তুলে ধরতে প্রচেষ্টা চালিয়ে থাকেন।