ইসলামবিদ্বেষী লেখক রবনিসনের বই নিষিদ্ধ করেছে অ্যামাজন, ফেসবুক-টুইটার থেকেও আউট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
লন্ডন: যুক্তরাজ্যের ইসলাম বিরোধী এবং উগ্র ডানপন্থী দল ‘English Defence League’ এর প্রতিষ্ঠাতা ‘Mohammed’s Koran: Why Muslims Kill For Islam’ নামের একটি বই লিখেছে যা ২০১৭ সালে প্রথম প্রকাশিত হয়।

আর বইটি অ্যামাজন ডট কমে ২০১৮ সালে ফেব্রুয়ারি মাসের ২৫ তারিখ পর্যন্ত কিনতে পাওয়া যেত, কিন্তু ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ যখন বইটির লেখক রবিনসনকে যার মূল নাম স্টিফেন ইয়াক্সলেই লেননকে ফেইসবুক থেকে নিষিদ্ধ করেছিল তখন থেকেই অ্যামাজন ডট কম বইটির বিক্রয় নিষিদ্ধ করে।

ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ জানায়, রবিনসন তাদের নীতিমালা ভঙ্গ করেছে এবং সে ঘৃণা ছড়ানো একটি দলের সমর্থন করে যা তিনি তার ফেইসবুক পেইজে তার মিলিয়নের উপরে অনুসারীদের সাথে ভাগাভাগি করেন।

অ্যামাজন থেকে বাদ পড়া
অ্যামাজন জানায়, ‘যে পণ্য ঘৃণা, সংঘাত, বর্ণবাদ, যৌনতা এবং ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা ছড়ায়’ তার বিক্রয় অ্যামাজন ডট কমে নিষিদ্ধ।

ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ জানায়, রবিনসনের ফেইসবুক পেইজটি ‘বার বার তাদের নীতিমালা ভঙ্গ করেছে এবং মুসলিমদের প্রতি ঘৃণা এবং সংঘাত ছড়ানোর মত বিষয়বস্তু শেয়ার করেছে।’

একই সাথে ২০১৮ সালের মার্চ মাসে তাকে টুইটার থেকে নিষিদ্ধ করা হয়। আর এর পরপরই তাকে পেপাল থেকেও নিষিদ্ধ করা হয়।

এটি এমন একটি সিদ্ধান্ত যা আমরা হালকাভাবে নেই নি

এক বিবৃতিতে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ জানায়, ‘ফেইসবুকে আমরা কি অনুমতি দিব তা একটি বড় প্রশ্ন, আর এ বিষয়টিকে সঠিক দিকে আনার জন্য আমরা অনেক সময় ব্যয় করেছি। এটি একই সাথে কষ্টকর এবং গুরুত্বপূর্ণ। আমরা ফেইসবুককে এমন একটি স্থান হিসেবে দেখতে পাই যেখানে আপনি নিজেকে মুক্তভাবে তুলে ধরতে পারেন এবং আপনার বন্ধু বান্ধবের সাথে ভাগাভাগি করতে পারেন।’

‘একই সাথে যখন লোকজন ফেইসবুকে আসে তখন আমরা তাদের স্বাগত জানাই এবং তাদেরকে নিরাপদ অনুভব করতে সহায়তা করি।’
‘এটি এমন একটি বিষয় যা আমরা খুবই আন্তরিকভাবে নিই।’

‘সুতরাং যখন কোনো ধারণা বা মতামত এই গণ্ডি পার করে যাতে ঘৃণামূলক বক্তব্য থাকে এবং যা এমন একটি আবহাওয়া তৈরি করে যা সমাজের জন্য ভয়ঙ্কর হয়ে দাঁড়ায় তখন আমরা এর বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেই।’

ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ আরো জানায়, ‘রবিনসন এমনভাবে ফেইসবুকে বিষয়বস্তু তুলে ধরেছেন যা আমাদের নীতিমালার বিরুদ্ধে যায় এবং তা ঘৃণা ছড়ায়। আর এর ফলাফল স্বরূপ আমরা আমাদের নীতি অনুসারে তার অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজ এবং ইন্সটাগ্রামের প্রোফাইল সরিয়ে ফেলেছি।’

‘এই সিদ্ধান্তটি আমরা হালকাভাবে নিইনি। যেসব ব্যক্তি এবং সংগঠন অন্যদের প্রতি আক্রমণ করে ফেইসবুক বা ইনস্টা গ্রামে তাদের কোনো স্থান নেই।’

এটি একটি আক্রমণ
রবিনসন গণমাধ্যম সমূহকে জানায় যে, বিবিসি সম্পর্কে তা নির্মিত ‘Panadrama’ নামের ডকুমেন্টারির জন্যই তার উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমি ফেইসবুকের কোনো নীতিমালা ভঙ্গ করিনি, সকলেই জানে যে, আমি কোনো নীতি ভঙ্গ করি নি। আমি শুধুমাত্র লোকজনের নিকট সত্য তুলে ধরেছি এবং তারা সত্য সরিয়ে দিয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘তোমরা আমাকে সেন্সর করছো না, বরং আমার বলা কথাসমূহ জনগণের নিকট যাতে না পৌঁছায় তার উপর সেন্সর করছ। আর এটি মুক্তভাবে মতামত প্রকাশের উপর একটি চূড়ান্ত আক্রমণ।’

যুক্তরাজ্যের UK Independence Party বা ‘Ukip’ এর নেতা জেরার্ড ব্যাটেন যিনি ২০১৮ সালে রবিনসনকে তার উপদেষ্টা হিসেবে নিযুক্ত করেছিলেন তিনি বলেন, রবিনসনের ফেইসবুক পেইজটি কিছু আবোলতাবোল কারণে বন্ধ করা হয়েছে এবং তিনি টুইটারে তার অনুসারীদের ‘Ukip’ এ যোগদানের আহ্বান জানান।

সূত্র: দ্যা সান ডট ইউকে।