এখনো সবচেয়ে প্রিয় মানুষ ওবামা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ওয়াশিংটন: যুক্তরাষ্ট্রে এখন সবচেয়ে প্রশংসিত পুরুষ হলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। আর সবচেয়ে প্রশংসিত নারী হলেন তারই অধীনে থাকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজিত হিলারি ক্লিনটন। তারা দু’জনেই যথাক্রমে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পকে এক্ষেত্রে পরাজিত করেছেন।

গ্যালাপ জরিপের বার্ষিক ফলে এ কথা বলা হয়েছে। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য গার্ডিয়ান। এতে বলা হয়, বুধবার দিনটি খারাপ খবর নিয়ে এসেছিল ডনাল্ড ট্রাম্পের জন্য।

অন্যদিকে খুশির দিন ছিল বারাক ওবামা ও হিলারি ক্লিনটনের জন্য। কারণ, তাদেরকেই এখনো সবচেয়ে বেশি মার্কিনি পছন্দ করেন, ভালোবাসেন। ওই রিপোর্টে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা প্রথম এক বছরেই ভয়াবহভাবে নিচে নেমে গেছে।

বারাক ওবামার সঙ্গে জনপ্রিয়তার মাপকাঠিতে তিনি দ্বিতীয় অবস্থানে চলে এসেছেন। বারাক ওবামার প্রশংসা করেছেন শতকরা ১৭ ভাগ মানুষ। আর ট্রাম্পকে প্রশংসা করেছেন শতকরা ১৪ ভাগ। ২০১৬ সালে ওবামাকে এক্ষেত্রে সমর্থন করেছিলেন শতকরা ২২ ভাগ মানুষ। আর ট্রাম্পকে ১৫ ভাগ।

ওই রিপোর্টে আরো বলা হয়, ইলেকটোরাল ভোটের হিসাবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজিত হন হিলারি ক্লিনটন। তবে তিনি প্রায় ৩০ লাখ বেশি পপুলার ভোট পেয়েছিলেন। গ্যালাপ জরিপে সবচেয়ে বেশি মানুষ যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি প্রশংসিত নারী হিসেবে সমর্থন দিয়েছেন সেই হিলারিকেই।

জরিপে অংশ নেয়া শতকরা ৯ ভাগ মানুষ তার পক্ষে রয়েছেন। এর ফলে তার চেয়ে মাত্র দুই পয়েন্ট কম পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন সাবেক ফার্স্টলেডি মিশেল ওবামা। আর পাঁচ পয়েন্ট কম পেয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন অপরাহ উইনফ্রে। জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে শতকরা মাত্র ৩ ভাগ সমর্থন করেছেন ম্যাচাচুসেটসের সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেনকে।

তার চেয়ে এক পয়েন্ট কম পেয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল ও রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান ফাস্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পকে সমর্থন করেছেন শতকরা মাত্র এক ভাগ মানুষ। একই সমান সমর্থন রয়েছে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কন্ডোলিজা রাইস, জাতিসংঘে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি, বৃটিশ রাজবধূ কেট মিডলটন, সংগীতশিল্পী বেয়োন্সে নোয়েলস।

যুক্তরাষ্ট্রে এ বছর সবচেয়ে বেশি প্রশংসিত পুরুষের মধ্যে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন ষষ্ঠ পোপ ফ্রাঁসিস। তাকে সমর্থন করেছেন শতকরা ৩ ভাগ মানুষ। এরপরেই রয়েছেন আরিজোনার সিনেটর জন ম্যাককেইন। তাকে সমর্থন করেছেন শতকরা ২ ভাগ মানুষ।