এই নির্বাচন হয়তো ইতিহাসের পাতায় লিপিবদ্ধ থাকবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
ঢাকা: এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাংলাদেশে ঐতিহ্য সৃষ্টি করবে বলে মন্তব্য করে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, ‘এই প্রথম একটি অংশীদারমূলক ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন আমরা জাতিকে উপহার দিতে পেরেছি।’

বৃহস্পতিবার নির্বাচন ভবনে ‘সফল’ নির্বাচনের পর পিঠা উৎসব পূর্ববর্তী ‘ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে’ অংশ নিয়ে মাহবুব তালুকদার এ কথা বলেন।

নির্বাচনের আগে ইসির সিদ্ধান্তের সঙ্গে বারবার দ্বিমত পোষণ করে আলোচনায় ছিলেন জ্যেষ্ঠ এই নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। তবে নির্বাচনের পরে এই প্রথম ভোল্ট পাল্টালেন তিনি।

তিনি বলেন, আমি আমার জীবন প্রারম্ভে যখন সরকারি চাকরিতে আসি, তখন বঙ্গবভবনে পাঁচ বছর সময় কাটিয়েছিলাম। চারজন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আমরা সরাসরি কাজ করার সুযোগ হয়েছে। তবে এই পাঁচ বছর আমার জীবনে গৌরব গাঁথা হয়ে থাকবে।

মাহবুব তালুকদার বলেন, আমি মনে করি এ নির্বাচন বাংলাদেশের নির্বাচনের ইতিহাসে একটা ঐতিহ্য সৃষ্টি করবে। এই নির্বাচন ধরেই পরবর্তী ইতিহাসে যে নির্বাচনের ধারা আসবে, সেটা পরবর্তী সময়ে হয়তো ইতিহাসের পাতায় লিপিবদ্ধ থাকবে। আমার জীবনের একটা বিশাল অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করতে পেরেছি। এবং কী নিরলস প্রচেষ্টায় আপনারা এ নির্বাচনটা আপনারা সফলদায়ক করেছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাতে চাই প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা এবং যোদ্ধার মতই তিনি এ বিশাল কর্মযজ্ঞে সবাইকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

মাহবুব তালুকদার বলেন, আপনারা জানেন আমাদের নির্বাচনের কোনো ধারাবাহিকতা নেই। কিংবা ছিলো না। আমরা কখনো তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন করেছি। কখনো সেনাসমর্থিত সরকারের অধীনে নির্বাচন করেছি। কখনো নির্বাচন করেছি দলীয় সরকারের অধীনে কিন্তু তা অংশীদারমূলক হয়নি। এই প্রথম একটি অংশীদারমূলক ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন আমরা জাতিকে উপহার দিতে পেরেছি। এই নির্বাচন বাংলাদেশের নির্বাচনের ইতিহাসে একটি ঐতিহ্য সৃষ্টি করবে।

মাহবুব তালুকদার বলেন, এই বিশাল কর্মযজ্ঞের কেন্দ্রবিন্দু নির্বাচন কমিশনের সচিব মহোদয় ও তার নির্বাচন সৈনিকেরা। তারা যে কী নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে এই নির্বাচনকে সফল করেছে। এটি অভিজ্ঞতার সঞ্চার হয়ে থাকবে। মাননীয় প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে ধন্যবাদ। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা। এবং যোদ্ধার মতো তিনি এই বিশাল কর্মযজ্ঞে সবাইকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

সিইসি ও অন্যান্য কমিশনারদের সঙ্গে নিজের সুসম্পর্ক বজায় থাকার কথা উল্লেখ করে মাহবুব তালুকদার বলেন, কমিশনার যাদের সঙ্গে আমার প্রতিদিনই দেখা হয়। আল্লাহর অপরিসীম অনুগ্রহ যে তাদের সঙ্গে দুই বছরের কাছাকাছি সময় অতিবাহিত করেছি এবং আরো তিন বছর অতিবাহিত করতে পারবো বলে আশা করি। তাদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক যে এত নিবিঢ় যা কখনো হয়নি, হওয়া সম্ভবও নয়। তাদের সঙ্গে অত্যন্ত আপনজনের মতো সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আর মাননীয় প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে আমার একটা মধুর সম্পর্ক রয়েছে। যেটার জন্য আমি আনন্দিত ও গর্বিত।