মায়ানমারের সেই রহস্যময় সৈন্যকে ফিরিয়ে দিল বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক
ঢাকা: দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের জেলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে অবৈধ অনুপ্রবেশের জন্য আটক মায়ানমারের এক সেনা সদস্যকে নিজ দেশে ফিরিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের হয়ে এই হস্তান্তরের নেতৃত্বদানকারী বিজিবি ১১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেনেন্ট কর্নেল মোঃ আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, রবিবার সকাল ১১ টার দিকে বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্ত দিয়ে তাকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। খবর বিবিসির

এর আগে বাংলাদেশ মায়ানমার ফ্রেন্ডশিপ ব্রিজের পাশে মায়ানমারের ১২ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের সাথে একটি পতাকা বৈঠক করা হয়েছে।

তারপর তাদের কাছে অং বো বো থিন নামের ঐ সেনাকে হস্তান্তর করা হয়।

আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, মায়ানমারের সেনাবাহিনীর পোশাক পরিহিত অবস্থায় গত ২৪শে জানুয়ারি নাইক্ষ্যংছড়ির ভালুখাইয়া অংশ থেকে তাকে আটক করা হয়েছিলো।

আনুমানিক ৩০ বছর বয়সী এই জওয়ানের কাছে তখন কোন প্রকার অস্ত্র ছিল না।

কেন মায়ানমারের এই সেনা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছিল?

এ বিষয়ে বিজিবির এই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘সেটা তার কাছে জানতে চাইলে সে আমাদের বলেছে যে তার ভালো লাগছিলো না। সেজন্যে সে চলে এসেছে এধরনের কথা বলেছে।’

‘সে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত এধরনের একটা কিছু বলতে চেয়েছে বলে মনে হয়েছে।’

আসাদুজ্জামান আরও জানিয়েছেন, ‘তার বাংলাদেশে ঢোকার পেছনে অন্য কোন ধরনের উদ্দেশ্য বা পরিকল্পনা ছিল কিনা সেটা বোঝার জন্য এখনো কাজ চলছে।’

‘অস্ত্রসহ ঢুকলে বিষয়টি অন্য ধরনের অর্থ দাঁড়াতো।’

সে পালিয়ে অন্য কোথাও না গিয়ে বাংলাদেশেই কেন এলো সে সম্পর্ক জানতে চাওয়া হয়েছিলো কিনা?

সে প্রসঙ্গে জানতে চাইলে লেফটেনেন্ট কর্নেল মোঃ আসাদুজ্জামান বলছেন, ‘পাশেই হয়ত বাংলাদেশ সেই কারণে হতে পারে। তাকে এতদিন বিজিবির জিম্মায় আটক অবস্থায় রাখা হয়েছিলো।’

‘জেনেভা কনভেনশনের নিয়ম অনুযায়ী একজন সামরিক বন্দির যেসব সুবিধা পাওয়ার কথা, তাকে থাকা খাওয়ার সেসব সকল ব্যবস্থা দিয়ে রাখা হয়েছিলো।’

তাকে যে ধরনের পোশাক পরিহিত অবস্থায় পাওয়া গেছে ঠিক সেভাবেই তাকে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবির এই কর্মকর্তা।