হঠাৎ চীন সফরে মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
ঢাকা:  হঠাৎ চীন সফর করছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। চীনা কমিউনিস্ট পার্টির আমন্ত্রণে এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিতে তিনি চীন যাচ্ছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা যায়।

বুধবার বেলা ২ টা ৩৫ মিনিটে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চীনের ইস্টার্ন এয়ার লাইনসের একটি ফ্লাইটে বেইজিংয়ের উদ্দেশ্যে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়েন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাজনীতিবিদরা এ সেমিনারে অংশ নেবেন। আগামী ৩০ নভেম্বর শুরু হয়ে ওই আন্তর্জাতিক সেমিনার চলবে ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

মির্জা ফখরুলের একান্ত সহকারী কৃষিবিদ মো. ইউনুস আলী জানিয়েছেন, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আমন্ত্রণে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিতে মহাসচিব চীন গেছেন। তার সফরসঙ্গী হিসেবে সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও আইনজীবী আসাদুজ্জামান রয়েছেন। সেমিনার শেষে আগামী ৪ ডিসেম্বর মির্জা ফখরুল দেশে ফিরবেন বলে জানান ইউনুস আলী।

৭২-৭৫ এর মতো মানুষ মুক্তি পেতে প্রার্থনা করছে: ফখরুল
নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ভোটের আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। এ সংসদ রেখে নির্বাচন হবে না।

বিএনপি নেতা তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীতে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা বিএনপি এই সভার আয়োজন করে।

ঢাকা মহানগর উত্তরের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুন্সি বজলুল বাছিত আঞ্জুর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব ও দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম প্রমুখ।

সব খাতে নজিরবিহীন দুর্নীতি চলছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পুরো দেশটাকে লুট করে নিয়েছে সরকার।

মির্জা ফখরুল বলেন, ব্যাংক, শেয়াবাজার সব জায়গায় লুটপাট হচ্ছে। এ জন্যই স্বাধীনতার পর শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, ‘সবাই পায় সোনার খনি আমি পেয়েছি চোরের খনি। আজকেও একই অবস্থা, দেশের সবকিছু লুট করে নিয়েছে আওয়ামী লীগ। মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা চুরি চলছে।

বিএনপি নেতা বলেন, আজ আমাদের তরুণদের ধ্বংস করা হচ্ছে, দেশে গণতন্ত্র নেই। বিচার বিভাগকে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে। সংসদ নেই।

১৯৭২ থেকে ৭৫ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগের আমলে মানুষ সরকারের হাত থেকে মুক্তি পেতে দোয়া করতো দাবি করে ফখরুল বলেন, , শেয়াবাজার সব জায়গায় লুটপাট হচ্ছে। এ জন্যই স্বাধীনতার পর শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, ‘৭২ থেকে ৭৫ এর মতো আবারো মানুষ হাত তুলে জালেমের হাত থেকে মুক্তি পেতে প্রার্থনা করছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, পাথরের মতো এ সরকার চেপে আছে, তাই এ পাথর সরাতে হবে। ঘরে বসে বসে স্লোগান না দিয়ে দলের নেতাকর্মীদের অলিতে গলিতে ছড়িয়ে পড়ে সরকারের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

সংগঠন গোছানোর আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, আমাদেরকে ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে। সংগঠন সৃষ্টি করতে হবে। আন্দোলনের মুখেই নির্বাচনে যেতে হবে। সেখানে আমাদের জয়লাভ করতে হবে। বেগম জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী আর তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারলে তবেই সফল হবো।

গণফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ড. কামাল হোসেনের বক্তব্যে সমর্থন জানিয়ে বিএনপি নেতা বলেন, ড. কামাল হোসেন সুপ্রিমকোর্ট বারের মিটিংয়ে যে কথা বলেছেন তা আমার পছন্দ হয়েছে। আমিও বলি গণতন্ত্র, সংবিধান, বিচারব্যবস্থা ও জনগণকে রক্ষার জন্য ঐক্য দরকার।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।