মেসির ভাই পুলিশের নজরদারিতে!

খেলা ডেস্ক
ঢাকা: মামলা-মোকদ্দমার সঙ্গে বারবার জড়িয়ে যাচ্ছে মেসি পরিবারের নাম। লিওনেল মেসি ও তার বাবা হোর্হে মেসিকে আয়কর না দেওয়ায় নিয়মিতই হাজির হতে হয়েছে স্পেনের আদালতে।

এবার আর্জেন্টিনার আদালতেও দেখা যাবে মেসি পরিবারের আরেকজনকে। মেসির বড় ভাই ম্যাতিয়াস হোরাসিও মেসিকে (৩৫) অবৈধ অস্ত্র রাখার অভিযোগে পুলিশি নজরদারিতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মাতিয়াসের নিরাপত্তারক্ষীর বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল জানায়, নিজ বাড়ির কাছেই একটি ফিশিং ক্লাবে যান তিয়াস। মাতিয়াসের বাড়ি থেকে ২০ মিনিট গাড়ি চালিয়ে যাওয়া যায় এই ফিশিং ক্লাবে। সেখানে তিনি একটি দুর্ঘটনায় আহত হন। রোজারিওর কাছে এক নৌ দুর্ঘটনায় পড়েছিলেন ম্যাতিয়াস। তাকে উদ্ধারের সময় নৌকায় ০.৩৮ ক্যালিবারের একটি রক্তাক্ত অস্ত্র পাওয়া গেছে। অবৈধ অস্ত্র রাখার মামলাতেই আপাতত তাকে নজরদারিতে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দুর্ঘটনায় আহত ম্যাতিয়াস আপাতত একটি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সম্পূর্ণ সুস্থ হতে ২৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় নেওয়া হয়েছে।

আর্জেন্টিনার বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম রক্তের দাগসহ ইঞ্জিনচালিত নৌকাটির ছবি প্রকাশ করেছে।

তবে মাতিয়াসের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তার পরিবার। তারা বলেন, মাতিয়াসের নৌকাটি দুর্ঘটনাকবলিত হয়। এ সময় তার চোয়ালের হাড় ভেঙে গেছে ও মুখের বিভিন্ন স্থানে কেটে গেছে। এখন তিনি একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার একটি অস্ত্রোপচারও করতে হবে।

এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বর্তমান শারীরিক অবস্থায় মাতিয়াস কোনো কথা বলতে পারবে না। যদিও তারা হাসপাতালের নাম উল্লেখ করেনি।

এর আগে ২০১৬ সালেও মাতিয়াসের একটি গাড়িতে পিস্তল পাওয়া যায়।

নৌকায় পাওয়া রক্ত পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। রক্তের মালিক ও কী ধরনের দুর্ঘটনা, সেটা এখনো বুঝে উঠতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে শুধু অবৈধ অস্ত্র রাখার অভিযোগেই সাড়ে তিন থেকে সাড়ে আট বছরের জেল হতে পারে ম্যাতিয়াসের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।