খেলাধুলায় মুসলিম শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ে স্পোর্টস হিজাব চালু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
লন্ডন: চলতি মাসের ১১ তারিখ সোমবার বার্তা সংস্থা বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে যে, লন্ডন ভিত্তিক একটি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের মুসলিম নারী শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায় অংশগ্রহণে আগ্রহী করার জন্য স্পোর্টস হিজাব নিয়ে এসেছে।

ব্রুনেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসনের শিক্ষার্থী ফাইথ আল সাদ তার বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন নতুন হিজাব তৈরি সম্পর্কে বলেন, ‘আমি সত্যিই বিশ্বাস করি যে এটি একটি জীবন রক্ষাকারী সিদ্ধান্ত।’

ব্রুনেল বিশ্ববিদ্যালয় তাদের প্রতীক খচিত এসব স্পোর্টস হিজাব নিয়ে খুবই আশাবাদী। তারা আশা করছেন যে, এর ফলে খেলাধুলায় মুসলিম নারীদের আগ্রহ বাড়বে।

২০১৭ সালে যুক্তরাজ্যে করা পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে, দেশটির মুসলিম নারীদের শুধুমাত্র ১৮ শতাংশই খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করে থাকেন।

আল সাদ বলেন, ‘তিনি শতভাগ আশাবাদী যে, এসব হিজাব মুসলিম নারীদের খেলাধুলায় অংশ গ্রহণে আগ্রহী করে তুলবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্র পরিষদের প্রেসিডেন্ট রঞ্জিত রাথোর বলেন, ‘মুসলিম নারীরা এর পূর্বে ব্যক্তিগত ভাবে খেলাধুলায় অংশ নিত। কিন্তু তারা কোনো প্রতিযোগিতায় অংশ নিত না এবং খেলাধুলাকে বিভিন্ন কাজে সম্পৃক্ত হওয়ার উপাদান হিসেবে গণ্য করত না।’

রাথোর আরো বলেন, ‘এখন অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় সমূহ আমাদের সাথে এ বিষয়ে সহযোগিতা করতে চায়, তারা আমাদের নমুনাসমূহ নিতে চায় এবং তারা নিজেদের মত করে এসব স্পোর্টস হিজাব তৈরী করতে চায়। এটি আসলেই একটি খুশির খবর।’

ইসলামে হিজাব একটি বাধ্যতামূলক পোশাক, এবং তা কোনো ধর্মীয় প্রতীক নয় যা একজনের সাথে ধর্মীয় সম্পর্কের নির্দেশ করে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে ‘Switzerland-based federation (FIBA)’ নামের একটি সংগঠন হিজাবের উপর তাদের নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয় এবং তারা খেলোয়াড়দের কে তাদের নিজস্ব ধর্মীয় পোশাক যাতে হিজাব অন্তর্ভুক্ত ছিল তা পরিধান করার অনুমতি দেয়। যার ফলে মুসলিম নারী খেলোয়াড় গণ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পেরেছিল।

সূত্র: এবাউটইসলাম ডট নেট।