ইসলাম নিয়ে স্কুলশিক্ষকের কটূক্তির তদন্তে মালয়েশীয় পুলিশ

ইসলাম নিয়ে স্কুলশিক্ষকের কটূক্তির তদন্তে মালয়েশীয় পুলিশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
কুয়ালালামপুর: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ইসলাম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ ওঠেছে মালয়েশিয়ার একজন স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ওই শিক্ষকের মন্তব্য ভাইরাল হওয়ার পর দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। দেশটির পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।

অভিযুক্ত ওই শিক্ষক দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় উপকূল বর্নিও দ্বীপের মিরি শহরের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক।

রবিবার সারওয়াক ফৌজদারী তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) প্রধান দেব কুমার জানান, ওই শিক্ষকের মন্তব্যগুলো ফেসবুকে ভা্ইরাল হওয়ার পর কুচিং ও মিরির পুলিশ স্টেশনে দুটি মামলা দায়ের হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা ফেসবুকের অ্যাকাউন্ট ধারীকে চিহ্নিত করেছি, আমরা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে তলব করব।’

ইসলাম ও জেরুজালেম নিয়ে ওই শিক্ষক মন্তব্য করেন। সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন। তার এই ঘোষণায় বিশ্বজুড়ে মুসলিমদের ক্ষুব্ধ করেছে।

ওই শিক্ষক তার মন্তব্যের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন এবং মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার জন্য অনুতাপ প্রকাশ করেছেন।

সূত্র: দ্য মালয়েশিয়ান ইনসাইট

মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটূক্তি করায় মালয়েশীয় নারীর সাজা
হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় শুক্রবার মালয়েশিয়ার এক নারীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে এই তথ্য জানানো হয়েছে।
দণ্ডপ্রাপ্ত ওই নারী দেশটির চাইনিজ সংখ্যালঘু জাতিগোষ্ঠীর। তার নাম থম ইয়োট মুই (৪৬)।

রাষ্ট্র পরিচালিত ‘বারনামা নিউজ এজেন্সি’র খবরে বলা হয়, ২০১৬ সালে নর্দান পেরাক রাজ্যের একটি মসজিদে ইসলামের নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটূক্তির তিনটি মামলায় এই নারীকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

একই সঙ্গে তাকে ইপোর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৩,৭০০ মার্কিন ডলার জরিমানা করা হয়েছে।

তবে, আপীলের সুযোগ থাকায় ওই নারীকে এখনই জেলে যেতে হচ্ছে না। এই রায়ের বিরুদ্ধে আপীলের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে ওই নারীর আইনজীবী জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।