ইরানি জেনারেলকে হত্যায় ইসরায়েলকে সম্মতি দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র: আল-জারিদা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
তেহরান: ইরানের সেনাবাহিনী রেভুলিউশনারি গার্ডের বিদেশ শাখা কুদস বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যা করতে ইসরায়েলের পরিকল্পনায় সম্মতি জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার কুয়েতের দৈনিক পত্রিকা আল-জারিদা এক প্রতিবেদনে এই দাবি করেছে। পত্রিকাটি ইসরায়েলের সমর্থক বলে পরিচিত।
ইরানি কুদস বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল কাসেম সুলেইমানি

জেরুজালেমের একটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে আল-জারিদা লিখেছে, এই অঞ্চলে উভয় দেশের স্বার্থের জন্য সোলেইমানিকে হুমকি বিবেচনা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েলের একটি চুক্তি হয়েছে। তিন বছর আগে দুটি দেশের মধ্যে এই চুক্তি হয়। যদিও যুক্তরাষ্ট্র হত্যা চেষ্টাটি বানচাল করে দেয়।

খবরে বলা হয়েছে, সোলেইমানিকে হত্যার কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল ইসরায়েল। সিরিয়ার দামেস্কে এই হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ইরানের নেতৃত্বকে এই বিষয়ে সতর্ক করে দেয় যুক্তরাষ্ট্র। জেনারেলকে ইসরায়েল নিবিড় নজরদারিতে রেখেছে বলে জানানো হয়।

এই ঘটনায় মার্কিন ও ইসরায়েলি গোয়েন্দা ও নিরাপত্তাবাহিনীর মধ্যে বড় ধরনের মতবিরোধ তৈরি হয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

আল-জারিদা সিরিয়ায় ইরানের দ্বিতীয় শীর্ষ সামরিক নেতাকে চিহ্নিত করেছে। আবু বাকের নামে পরিচিত সেনা কর্মকর্তার আসল নাম মোহাম্মদ রেদা ফালাহ জাদেহ। ইসরায়েলসহ এ অঞ্চলে ইরানবিরোধীদের টার্গেট হতে পারেন আবু বাকের।

সূত্র: হারেৎজ।